হাজার মানুষের পদচারণায় রাঙামাটি রাজবন বিহারে ৪৪ তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান উদযাপিত

সুপ্রিয় চাকমা শুভ , রাঙামাটি: পার্বত্য চট্টগ্রাম তথা এশিয়া মহাদেশের মধ্যে অন্যতম বৌদ্ধ তীর্থ স্থান রাঙামাটি রাজবন বিহারে যথাযথ ধর্মীয় ভাব মর্যদায় ৩রা নভেম্বর দিনব্যাপী ৪৪ তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান উদযাপিত হয়েছে। তথাগত ভগবান বুদ্ধের সময়ে মহাপূণ্যবতী ,দানবতী,মিগারমাতা মহা উপাসিকা বিশাখা কর্তৃক প্রবর্তিত ঐতিহ্যবাহী শুভ দানোত্তম কঠিন চীবর দানকে ঘিরে রাঙামাটি রাজবন বিহারের প্রাঙ্গণে হাজার হাজার মানুষের পদচারনায় মুখরিত হয়ে উঠে অনুষ্ঠান।

৩রা নভেম্বর সকাল ৬ ঘটিকার সময়ে বুদ্ধ পতাকা উত্তোলন এবং ৯ ঘটিকার সময়ে রাঙামাটি রাজবন বিহার মাঠ প্রাঙ্গনে ভিক্ষু শ্রামনদের উপস্থিতিতে ২ দিন ব্যাপী মহাৎসব ১ম ও ২য় পর্ব অনুষ্ঠানে এ্যাডভোকেট সুস্মিতা চাকমার অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় পার্বত্য চট্টগ্রামের অন্যতম সংগীত শিল্পী রনজিৎ দেওয়ান ও তার দলের উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে সাধু সাধু সাধু ধ্বনিতে শুরু করা হয় শ্রেষ্ঠ দানোৎসব। অনুষ্ঠানে পঞ্চশীল প্রার্থনা ও ভিক্ষু সংঘকে মহাদান কঠিন চীবর প্রদান করেন চাকমা সার্কেল চীফ ও রাঙামটি রাজবন বিহারের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায়।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন রাঙামাটি রাজবন বিহারের কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি গৌতম দেওয়ান,২৯৯ নং রাঙামাটি আসনের সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার, চাকমা সার্কেল চীফ ও রাঙামটি রাজবন বিহারের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায়, প্রাক্তন উপমন্ত্রী মণি স্বপন দেওয়ান প্রমূখ। বিশেষ প্রার্থনা পাঠ করেন রাঙামাটি রাজবন বিহারের কার্যনির্বাহী পরিষদের সহ সভাপতি মিসেস নিরুপা দেওয়ান।

এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চাকমা রাণী য়েন য়েন, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মো: মানজারুল মান্নান, রাঙামাটি পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, রাঙামাটি প্রাক্তন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকাম, প্রাক্তন যুগ্ম জজ দীপেন দেওয়ান সহ অন্যান্য প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে হাজার পূণ্যার্থীদের মাঝে অমৃতময় বুদ্ধের বাণী প্রদান করেন, রাঙামাটি রাজবন বিহারের আবাসিক প্রধান ও বিহার অধ্যক্ষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড: জিনোবোধি মহাস্থবির, জিনোপ্রিয় মহাস্থবির,কাটাছড়ি বনভাবনা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ ইন্দ্রগুপ্ত মহাস্থবির ও রাঙামাটি রাজবন বিহারের অন্যতম ভিক্ষু শ্রীমৎ জ্ঞানপ্রিয় মহাস্থবির প্রমূখ।

এ শ্রেষ্ঠ দান কার্যের তাৎপর্যপূর্ণ চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে সতাতুম,সুতা রং, কাপড় বুনা ও সেলাই করে চীবর তৈরী করত: অনুত্তর পূণ্যক্ষেত্র পূজনীয় ভিক্ষু সংঘ আগমণের মধ্য দিয়ে ভিক্ষু সংঘের নিকট দান করে ইহকাল ও পরকাল এবং কর্মফলকে বিশ্বাস ও গভীর শ্রদ্ধা রেখে বাচনিক, মানসিক, আর্থিক ও কায়িক ভাবে অধিকতর পরিশ্রম হয় বিধায় ইহা মহাফল লাভ হয় বিশ্বাসের সহিত বিভিন্ন স্থান থেকে সকল সম্প্রদায় শত শত নারী-পুরুষ পূর্ন্যাথী অংশ গ্রহণের সকল বিশ্ব জাতির মঙ্গল ও অতীত দেব মানুেষর মুক্তির কামনায় বুদ্ধ মূর্তি দান,বুদ্ধ মূর্তি দান, সীবলী পূজা, কঠিন চীবর উৎসর্গ, সংঘ দান, অষ্টপরিস্কার দান, কল্পতরু দান, হাজার প্রদীপ দান, পিন্ডুদান সহ নানা বিধ দান অনুষ্ঠিত হয়।

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!