রামুতে বৌদ্ধ বিহারে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

কক্সবাজার জেলার রামুর একটি বৌদ্ধ বিহারে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। উত্তর মিঠাছড়ি প্রজ্ঞামিত্র বন বিহার নামক বিহারে ১৫ আগস্ট দিবাগত রাত পৌনে দুইটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।
গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, ১৫ আগষ্ট দিবাগত রাতে একদল ডাকাত নির্মাণাধীন বিহারের দোতলার খোলা জানালা দিয়ে মইয়ের সাহায্যে বিহারের ভেতরে প্রবেশ করে প্রথমে বিহারের সেবক ধন বড়ুয়াকে লাথি মেরে ঘুম থেকে তুলে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে চাবি দিতে বলে। তার চিৎকার শুনে বিহারাধ্যক্ষ সারমিত্র মহাথের রুম থেকে বাইরে এলে ডাকাতরা তাকেও জিম্মি করে। এক পর্যায়ে বিহারে অবস্থানরত জ্যোতিপ্রজ্ঞা শ্রামণ (১৪), পিজল বড়ুয়া (১১)সহ একে একে সবাইকে জিম্মি করে ডাকাত দল।
বিহারাধ্যক্ষ সারমিত্র মহাথের গণমাধ্যম কে জানিয়েছেন, ডাকাতেরা সংঘবদ্ধ ও তাদের হাতে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র ছিল। বিহারের ভেতরে ডাকাতি চলাকালীন সময়ে অন্তত সাতজন ডাকাত ছিল। বাইরে ডাকাত দলের আরো সদস্য ছিল বলে তার ভাষ্য। ডাকাত দল নগদ ৪৭,৩৭০ টাকা, ৪টি দানবাক্স্রের দানকৃত টাকা লুট করে। এছাড়াও, ২টি মোবাইল, ৪টি বিদেশী টর্চ লাইট, একটি মনিটর (টিভি), ৩টি বিদেশী কম্বলসহ ৪টি আলমারি ভেঙ্গে আরো কিছু ব্যবহার্য জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়।
খবর পেয়ে কক্সবাজারের প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন, পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন সকালে প্রজ্ঞামিত্র বন বিহার পরিদর্শন করেছেন। এসময় পুলিশ এবং পুলিশের বিশেষ শাখার উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ নিকারুজ্জামান এবং রামু থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মোঃ লিয়াকত আলী উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ শাজাহান আলি এবং বিজিবি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!