“রাঙামাটিতে আদিবাসীদের ঐতিহ্যবাহী ফুল ভাসানোর মধ্যে দিয়ে আগামীকাল থেকে বিজু উৎসব শুরু”

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙামাটি প্রতিনিধি :
রাঙামাটিতে আদিবাসী চাকমা জাতি-গোষ্ঠীর ফুল ভাসানোর মধ্যে দিয়ে ফুল বিজু দিন অতিক্রম করে মুল বিজুকে আমন্ত্রন বার্তা জানানো হয়েছে।
 
১২ ই এপ্রিল সকাল ৮ ঘটিকার সময়ে বিজু, সাংগ্রাই, বৈসুক, বিষু, বিহু চাংক্রান ২০১৭ উদযাপন কমিটির আয়োজনে রাঙামাটি রাজবন বিহার সংলগ্ন বেইন ঘর নিকটবর্তী স্থানে ফুল ভাসানো হয় । ফুল ভাসাতে শত শত যুবক-যুবতী ছাড়াও বিভিন্ন পেশা শ্রেণীর মানুষ সহ সুশীল সমাজ অংশগ্রহণ করে।
 
ফুল ভাসানোর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের আদিবাসী ফোরামের সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা, এমএন লারমা মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের আহব্বায়ক বিজয় কেতন চাকমা , ২০১৭ইং বিজু উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ইন্টুমনি চাকমা সহ অন্যান্য প্রমূখ ।
 
ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায় বলেন, পাহাড়ি আদিবাসী জন-গোষ্ঠীর অন্যতম উৎসব দিন হল ৩ দিন। এ তিন দিনের মধ্যে ফুল বিজু দিন হল অন্যতম। পুরাতন বছরকে বিদায়ের মাধ্যেমে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে ফুল ভাসানোর মাধ্যমে আমন্ত্রন জানানো হয় মূল বিজুকে।
 
ফুল ভাসানোর মাধ্যমে আদিবাসীদের ঐতিহ্য সংস্কৃতি ফুঠে উঠে। আমাদের আদিবাসীদের নিজ নিজ সংস্কৃতি ধরে রাখা প্রত্যেক আদিবাসীর দায়িত্ব ও কর্তব্য। বর্তমান অবস্থানের জন্য আজ আদিবাসীদের সংস্কৃতি বিলুপ্তির পথে। অনেকে ধুতি, পিনোন-কাদি পরিধান করতে জানেনা। সেজন্য সকল আদিবাসীদের নিজ কৃষ্টি সাংস্কৃতি ধরে রাখতে নিজেকে সচেতন হতে হবে।
প্রতি বছর বিজু উৎসবে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে সাজে ভিন্ন রুপে, ভিন্ন সাজে ও নতুন আঙ্গিকে।মনে জাগে শিহরন, নব প্রেরনা ও ভিন্ন উৎসাহ সৃষ্টি হয় নতুন আমেজ । মানুষের মনে মনে জাগে চৈত্র সংক্রান্তির পুরাতন বাংলা বর্ষ বিদায় ও নতুন বর্ষ বরনের মহাৎসব। উৎসবটি ঘিরের ঘরে ঘরে চলছে আয়োজনের ব্যাপক প্রস্তুতি ।
 
প্রতি বছর চৈত্র সংক্রান্তিতে বর্ষ বিদায় ও বর্ষ বরণ উপলক্ষে পালন করা ঐতিহ্যবাহী এই উৎসবটি। প্রথমদিনে চাকমারা ফুলবিজু , মারমারা পাইছোয়াই, ত্রিপুরারা হারিবৈসুক এবং দ্বিতীয় দিনে অর্থ্যাৎ উৎসবের প্রধান দিনটিকে চাকমারা মূলবিজু , মারমারা সাংক্রাইং আক্যা আর ত্রিপুরারা বৈসুকমা এবং শেষ দিন বাংলা নবর্ষের প্রথমদিন চাকমা গোজ্যোপোজ্যা দিন, মারমারা সাংক্রাই আপ্যাইং ও ত্রিপুরারা বিসিকাতাল নামে আখ্যায়িত।

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!