বৌদ্ধদের বড়ই দুঃখের দিন আজ

সিদ্ধার্থ গৌতম বুদ্ধত্ব লাভের সময়ে নানা ভাবে বাধা দিয়েছিল পাপমতি মার কিন্তু তাতে পেরে না উঠে বুদ্ধত্ব লাভের পরে এক সময় বুদ্ধের কাছে প্রার্থনা করেন তিনি যেন পরিনির্বাপিত হন। বুদ্ধ বলেছিলেন- হে পাপমতি মার যতদিন পর্যন্ত আমার ভিক্ষু শ্রাবকগণ/ভিক্ষুণী শ্রাবিকাগণ/উপাসকবৃন্দ/উপাসিকাবৃন্দ আর্য মার্গ লাভ করে নিপুণ, বিনীত, বহুশ্রুত….স্বীয় আচার্যবাদ শিক্ষা করে জন সমাজে প্রচার, ব্যাখ্যা …ইত্যাদি করতে সমর্থ না হবেন ততদিন আমি পরিনির্বাপিত হব না।
 
 
 
বুদ্ধের আশি বছর বয়সে আজকের দিনে অর্থ্যাৎ মাঘী পূর্ণিমা তিথিতে পাপমতি মার আবারও প্রার্থনা করবেন বুদ্ধ জানতেন। তাই আনন্দকে বুদ্ধ দেশনাচ্ছলে বললেন, হে আনন্দ, যে কারও চারি ঋদ্ধিপাদ ভাবিত, বহুলীকৃত….হলে তিনি ইচ্ছা করলে কল্পকাল বা অবশিষ্ট কল্পকাল পর্যন্ত অবস্থান করতে পারেন। তথাগতেরও চারি ঋদ্ধিপাদ ভাবিত, বহুলীকৃত হয়েছে, তথাগত ইচ্ছা করলে কল্পকাল বা কল্পের অবশিষ্ট কালব্যাপী অবস্থান করতেপারেন (পূর্বেও বুদ্ধ এই কথা নানাভাবে বলেছেন)।
এদিকে আনন্দ যেন বুদ্ধের কথার মর্মার্থ বুঝতে না পারেন সেই জন্য মার তাকে ভীষণ রূপ দেখালেন। আনন্দ তাই বুদ্ধের কথার মর্মার্থ বুঝতে না পেরে বুদ্ধকে কোনরূপ প্রার্থনা করেন নাই। আনন্দ চলে যাওয়ার পর মার এসে যখন বুদ্ধকে পরিনির্বাপিত হওয়ার প্রার্থনা করেন তখন বুদ্ধ ঘোষণা করেন তিন মাস পর তিনি পরিনির্বাপিত হবেন। পরবর্তীতে আনন্দ তা জানার পর বুদ্ধকে বারংবার প্রার্থনা করেও বুদ্ধের দেওয়া কথাকে পরিবর্তন করতে পারেন নাই।
অহো! আনন্দ ভান্তে যদি বুদ্ধের কথার মর্মার্থ বুঝতে পারতেন তবে হয়তো আমরা বর্তমান সময়েও বুদ্ধকে দেখার সুযোগ পেতাম। কারণ বুদ্ধগণ যে কল্পকাল অবস্থান করতে পারেন। চলুন উপরোক্ত বিষয় থেকে দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় শিক্ষা গ্রহণ করি এবং নিজেদের প্রশ্ন করি-
১) আনন্দ ভান্তে ঐ সময় স্রোতাপন্ন সম্পন্ন ছিলেন। আনন্দ ভান্তে স্রোতাপন্ন হয়েও মারের কারণে স্বয়ং তথাগত বুদ্ধের কথা বুঝতে পারেন নাই, যথাযথ অনুধাবন করতে পারেন নাই। আর আমরা ইদানীং ফেইসবুকে বুদ্ধের প্রচারিত ধর্মের নানান মনগড়া ব্যাখ্যা দিয়ে বুদ্ধের ধর্মকে বিতর্কিত করে তুলছি, আমরা জেনে বুঝে করছি তো? বুদ্ধের ধর্ম কি এতই সহজ?
২) স্বয়ং বুদ্ধকেও পরিনির্বাপিত হতে হয়েছে, সেখানে আমি আপনি কি চিরকাল বেঁচে থাকতে পারবো? যদি না পারি তবে আমরা কি প্রস্তুত? যাওয়ার পাথেয় সংগ্রহ করেছি কি?
বৌদ্ধদের এই শোকের দিনে, দুঃখের দিনে, শুভ মাঘী পূর্ণিমা দিনে সকলের নির্বাণ প্রার্থনা করছি।
সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!