বিদ্যুৎস্পৃষ্ঠে সহকর্মীর মৃত্যুকে হত্যা বলে ভূয়া গণমাধ্যমে সাম্প্রদায়িক উস্কানী প্রচার: প্রতিবাদে আইসিএসটি কর্তৃপক্ষের সংবাদ সম্মেলন

ফেনী ইনস্টিটিউট অব কম্পিউটার সাইন্স এন্ড টেকনোলজির শিক্ষক পেয়ার আহম্মদ মজুমদারের মৃত্যু নিয়ে একটি মহল থেকে সাম্প্রাদায়িক উস্কানী দেয়া হচ্ছে। ফেইসবুকের বিভিন্ন ফ্যাক আইডি ও একাধিক ভূয়া অনলাইন পোর্টাল থেকে আইসিএসটির এক বৌদ্ধ শিক্ষকে জড়িয়ে রোহিঙ্গা ইস্যুর কারনে তাকে হত্যা করা হয়েছে এমন মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে আইসিএসটি কর্তৃপক্ষ।

সংবাদ সম্মেলনে ইনস্টিটিউট অব কম্পিউটার সাইন্স এন্ড টেকনোলজি কর্তৃপক্ষ।

সোমবার সন্ধ্যায় শহরের একটি রেষ্টুরেন্টে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ আরিফ আল মাহমুদ লিখিত বক্তব্যে জানান, ২৭ তারিখ তাদের প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ঠ হয়ে নিহত হন পেয়ার আহাম্মেদ নামে এক শিক্ষক। পরে এ ঘটনা নিয়ে এক বৌদ্ধ শিক্ষককে জড়িয়ে রোহিঙ্গা ইস্যুর কারনে তাকে হত্যা করা হয় বলে একটি মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাম্পদায়িক উস্কানি ছড়াচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, প্রকৃত পক্ষে ঘটনার দিন সকালে গোসল করে পাইপে কাপড় শুকোতে দেয়ার সময় পেয়ার আহাম্মেদ বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়। পরে তাকে সহকর্মীরা উদ্ধার করে দ্রুত সদর হাসপাতালে নিলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে। তাই তিনি ঘটনাটি যাচাই করে সত্য উদঘাটনের জন্য সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ করেন। এসময় প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক আওলাদ হোসেন খালেদ,তানজির বিন আবদুল মজিদ,এনায়েত উল্যাহ,বাপ্পী চন্দ্র দাস,মোঃ মাঈন উদ্দিন,কাজী আবুল বাসার ও পরিচালক নজরুল ইসলাম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশের দায়িত্বশীল সূত্র থেকেও জানান হয়েছে ফেসবুকের বিভিন্ন ফ্যাক আইডি থেকে উস্কানীমূলক স্ট্যাটাস দিয়ে এ ঘটনায় সাম্প্রাদায়িক উস্কানী দেয়া হচ্ছে ।

ঘটনাটি অধিকতর তদন্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, গত ক’দিন ধরে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের বিভিন্ন আইডিতে ঘটনাটিকে ‘বৌদ্ধের হাতে শিক্ষক খুন’ বলে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। যা সাম্প্রদায়িক উস্কানীমূলক ও বিভ্রান্তিকর।

তিনি বলেন, শিক্ষক মৃত্যুর ঘটনাটি যথাযথ তদন্তের মাধ্যমে উদ্ঘাটনে পুলিশ কাজ করছে। যারা ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত তাদেরকেও চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে তিনি জানান।

প্রসঙ্গত; বুধবার সকালে শহরের সদর হাসপাতাল এলাকায় কলেজ হোস্টেলের নিজ কক্ষে অসাবধানতা বসত বিদ্যুতের তার স্পর্শ করলে শিক্ষক পেয়ার আহমদ মজুমদার গুরুতর আহত হয়।পরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত পেয়ার আহাম্মদ ওই কলেজে দীর্ঘদিন ধরে গণিতের শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি পরশুরাম উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের মনিপুর গ্রামের বাসিন্দা ও এক সন্তানের জনক।

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!