পূর্ণাঙ্গ ত্রিপিটক গ্রন্থ বাংলায় প্রকাশ যুগান্তকারী ঘটনা: প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বক্তাদের অভিমত

রাঙ্গামাটি রাজনব বিহারে পবিত্র ত্রিপিটক গ্রন্থ প্রকাশনা অনুষ্ঠান। ছবি: রিগ্যান বড়ুয়া।

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি: বাংলা ভাষায় সমগ্র ত্রিপিটক গ্রন্থ প্রকাশ একটি যুগান্তকারী ঘটনা। বৌদ্ধদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ ‘ত্রিপিটক’ এর ৫৯টি গন্থকে বাংলাতে ২৫টি গ্রন্থেপ্রকাশের ফলে একদিকে মহামানব গৌতম বুদ্ধের সর্ব প্রাণীর কল্যাণকর উপদেশ বাণী জানার সুযোগ সৃষ্টি হবে অন্যদিকে এটি বাংলা সাহিত্যেকে সমৃদ্ধ করবে, এমন আশা প্রকাশ করেছেন ত্রিপাসো কৃর্তৃক প্রকাশিত ত্রিপিটক প্রকাশনা অনুষ্ঠানের বক্তারা।

আজ ২৫ আগস্ট, শুক্রবার রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে আয়োজিত বাংলা ভাষায় প্রকাশিত সমগ্র ত্রিপিটকের মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ‘ত্রিপিটক পাবলিশিং সোসাইটি বাংলাদেশ”।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে চাকমা সার্কেল চীফের উপদেষ্টা রাণী ইয়েন ইয়েন, রাঙামাটি রাজ বন বিহারের বনভান্তের শিষ্য সংঘের আবাসিক প্রধান শ্রীমৎ প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির, ত্রিপিটক প্রকাশনা কমিটির আহ্বায়ক শ্রীমৎ ইন্দ্রগুপ্ত মহাস্থবির, শান্তিপুর অরণ্য কুটিরের বিহার অধ্যক্ষ শাসন রক্ষিত মহাস্থবির, ফুরমোন আন্তর্জাতিক ভাবনা কেন্দ্রের বিহারের অধ্যক্ষ ভৃগু মহাস্থবির ভিক্ষু।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ড: জিনবোধি ভিক্ষু, ড: জ্ঞানরত্ন মহাস্থবির, অধ্যাপক ড: আফসার আহমেদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক সাবেক উপমন্ত্রী মনি স্বপন দেওয়ান সহ বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত গুণীজন ও ত্রিপিটক পাবলিশিং সোসাইটি বাংলাদেশ এর সদস্য বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, সর্বজন শ্রদ্ধেয় সাধনানন্দ মহাস্থবির (বনভান্তে)’র স্বপ্ন ছিল ত্রিপিটকের সকল খন্ড বাংলাতে করার। দশ বছরের অধিক প্রচেষ্টার পরে এ প্রকাশনার মাধ্যমে ভান্তের স্বপ্ন পুরণ হলো। ইতোমধ্যে দশ হাজার ত্রিপিটক সেট ছাপানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ত্রিপিটকের সবগুলো খন্ড রাজবন বিহার থেকে সংগ্রহ করা যাবে। দাম পড়বে ২০ হাজার টাকা।

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!