পরিনাম একটাই

নশ্বর সুজয়: দিকে দিকে পুড়েছে ঘর, পুড়েছে গেরস্থালি। দিন দুপুরে হচ্ছে লুট গুম ধর্ষণ। মালাউন বলেই জবরদখল হচ্ছে মন্দির ,বিহার , শ্মশান , পৈতৃক ভিটা। জীবনের দায়ে হতে হচ্ছে দেশান্তর। হচ্ছে বারেবারে বিশ্বাসের উপর আঘাত। ধর্মের দায়ে নানা ব্যঙ্গাত্মক গালিগালাজ। জোরপূর্বক ধর্মান্তরীকরণ। আরো কতশত হাজারো বিদ্রুপ। একজন বাঙ্গালী সংখ্যালঘু জন্মের পর আমৃতু্য এসব হাড়েহাড়ে প্রত্যক্ষ করে।


বাংলাদেশের সংখ্যালঘুরা ১৯৭১ এ লুঙ্গি তুলে বাছাই করে হত্যা করতে দেখেছে, ১৯৯২ এর বাবরি মসজিদ ইস্যুতে সৃষ্ট ভয়াবহ কালো দিন দেখেছে, ২০০১ সালে ক্ষমতার জয়োল্লাসও দেখেছে। ২০১২ তে রামুর বৌদ্ধপল্লী , বৌদ্ধ বিহার চোখের সামনে ছাইভস্ম হতেও দেখেছে। রক্ষিত বাহিনীর হাতে সংখ্যালঘুর করুন মৃত্যুও দেখেছে। পাহাড়ী যুবতীর ধর্ষণ হত্যাও দেখেছে। আজকের লংগদুতের মতোই পাহাড়ীদের ঘরবাড়ি বসতবাটীর লেলিহান শিখাও দেখেছে।
ভবিষ্যতে অমন দিন আবার আসবে, তাও তারা জানে। শুধু বুকের ভেতর দিনের পর দিন জমাট বাধে — অপ্রকাশতব্য কৃষ্ণ মেঘের, যা কখনও বর্ষে না। বিরান মরুভূমির মতোই হাহাকার থাকে নিত্যদিন।

এতো এতো নির্যাতন হওয়ার পরও সংখ্যালঘুরা কোনোদিন জঙ্গী হয়ে ওঠেনি। কোনো দিন রাষ্ট্রদ্রোহিতা করেনি, রাজাকারের নামের তালিকায়ও এদের নাম নেই। আর বুকে বোমা বেঁধে ঝাঁপিয়েও পরেনি নিরীহ মানুষের উপর।

প্রতিশোধের নেশাও এদের জন্মেনি কদাপি।  সবকিছুরই বিনিময়ে এরা চেয়েছে শুধু একটু স্বস্তির সহানুভূতি, কিন্তু অভাগা নিয়তি কখনো তা জুটেনি। শুধু একটু মিলেমিশে থাকবে বলেই বিহারে বিহারে মন্দিরে মন্দিরে আয়োজন হয় সার্বজনীন খাদ্য বিতরণ। রক্তদান, রাজপথে শীতবস্ত দান , আরো কত কি।
কিন্তু পরিশেষ পরিনাম একটাই
এরা মালাউন, এদের ঠাই নাই।

বাংলার মাটি বলে আমি বাংলার সন্তান, বাংলার ভাষা বলে আমি বাঙ্গালী। বাংলার কৃষ্টি সংস্কৃতি বলে আমি বাংলার। পাহাড়পুর , সোমপুর, ময়নামতি বিক্রমশীলা, জগতদ্দল বিহারই বলে ইহাই আমার চৌদ্দপুরুষের বাসভূমি। বাংলার প্রসূতি মাতা “পালি” বলে ইহাই আমার ভাষা।

অন্তে – রবিঠাকুর ভাষায় বলি –
তুমি মহারাজ সাধু হলে আজ- আমি চোর বটে।

নমোনমো নম সুন্দরী মম জননী বঙ্গভূমি !
গঙ্গার তীর স্নিগ্ধ সমীর , জীবন জুড়ালে তুমি ।
অবারিত মাঠ , গগনললাট চুমে তব পদধূলি ,
ছায়াসুনিবিড় শান্তির নীড় ছোটো ছোটো গ্রামগুলি ।

আজ সবিই ধর্মান্ধের কবলে কবলিত।
বাসযোগ্য এতটুকরো বিশ্বাসের আশ্রয়ও নাই।

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!