জেলা কারাগারে আটকে রেখে চায়নার মনোবল ভাঙা যাবে? নাকি ওর ফ্রি স্পিরিট দমানো যাবে?

ইমতিয়াজ মাহামুদঃ রাঙ্গামাটি জেলা কারাগারটি আমার পরিচিত। এর ভেতরে কখনো যেতে পারিনি, কিন্তু আনন্দ বিহার থেকে হেঁটে কারাগারের গেট হয়ে হাসপাতালের সামনে দিয়ে রিজার্ভ বাজারে গেছি বহুবার। জায়গাটা সেরকম সুন্দর লাগেনি কখনো। আজকে রাঙ্গামাটি কারাগারের ফটো দেখলাম একজনের ফেসবুকে। কি যে চমৎকার লাগলো দেখ, মনে হচ্ছিল যেন বেয়াল্লিশ হাজার গোলাপ ফুটেছে সেখানে। কেন জানেন?

চায়না পাটোয়ারী নামে কালো জামাকাপড় পরা পুঁচকে একটা মেয়ে বৃষ্টির মধ্যে হাসতে হাসতে বের হচ্ছে রাঙ্গামাটি জেলা কারাগার থেকে। মেয়েটা আকৃতিতেও পুঁচকে, বয়সেও কেবল কিশোরী কিন্তু চেতনার দিক দিয়ে আপনার আমার চেয়ে অনেক অনেক বড় এবং অনেক অনেক সুন্দর। এই মেয়েটি একটি ফেসবুক পোস্টে ওর মতামত প্রকাশ করেছিল যেটা সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর পছন্দ হয়নি। আর সাম্প্রদায়িকতার হেফাজত করার দায়িত্ব নাকি এখন ছাত্রলীগ নিয়েছে- ওরা দিয়েছে ওর বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় মামলা ঠুকে।

বেশ কয়েকদিন জেলে ছিল চায়না। ও নাকি গান করে খুব সুন্দর। ছাত্র ইউনিয়নের একজন নেতা সে, সারা দুনিয়ার নিপীড়িত মেহনতি মানুষের মুক্তির লড়াইয়ের একজন খুদে সেনাপতি। এই কয়দিন রাঙ্গামাটি জেলা কারাগারে আটকে রেখে কি ওর মনোবল ভাঙা যাবে? নাকি ওর ফ্রি স্পিরিট দমানো যাবে? যাবে না। জেলখানা থেকে বের হচ্ছে সারা মিষ্টি মুখটিতে হাসি ছড়িয়ে।

তোমরা যারা ওকে জেলে পাঠিয়ে ওকে হেনস্থা করতে চেয়েছ, আর তোমাদের রাষ্ট্র- দেখো, চায়না হচ্ছে মানুষ, একজন প্রকৃত মানুষ যার শক্ত একটা মেরুদণ্ড আছে আর আছে আদর্শের প্রশ্নে লড়ার অকুতোভয় চিত্ত। ওকে পরাজিত করবে সে শক্তি তোমাদের নাই।

আমার খুব অহংকার হচ্ছে এই কথা বলতে যে চায়না পাটোয়ারীর সংগঠনের আমি একজন সদস্য ছিলাম ওর সমান বয়সে এবং ঐখানে ওর শহর রাঙ্গামাটিতেই। চায়না তোকে সালাম জানাই রে, তোরা থাকতে এই দেশের আর ভয় নাই। মাভৈ।

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!