চাকমা রাণী য়েন য়েনকে হুশিয়ারী

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, (স্টাফ রিপোর্টার) রাঙামাটি

চাকমা সার্কেল চীফ এর ২য় পত্নী চাকমা রাণী য়েন য়েনকে হুশিয়ারী দিয়েছে পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের নেতা কর্মীরা। ০৬ ফেব্রুয়ারী(মঙ্গলবার) সকালে রাঙামাটি জেলা শাখা অফিসে পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে চাকমা সার্কেল চীফ এর ২য় পত্নী য়েন য়েন কর্তৃক পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি ও উস্কানি দিচ্ছে এমন অভিযোগ উল্লেখ করে রাঙামাটিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। অবিলম্বে পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে য়েন য়েন কে অভিযুক্ত করে আইনের আওয়াতায় আনা হোক না হলে আগামী ১৩ই ফেব্রুয়ারিতে রাঙামাটিতে মানববন্ধন,১৯ই ফেব্রুয়ারিতে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি পেশ, ২৭ই ফেব্রুয়ারির মধ্যে রাণী য়েন য়েন সাম্প্রদায়িক ও বিতর্কিত কর্মকান্ড বন্ধ না করে অথবা প্রশাসন তাকে আইনের আওয়াতায় নিয়ে না আসে তখন পরবর্তীতে বিক্ষোভ,হরতাল অবরোধ সহ বৃহত্তর কর্মসূচী প্রদানে বাধ্য করা হবে এমন তিন দফা দাবী জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি বেগম নূরজাহান,বাঙালী ছাত্র পরিষদের সম্পাদিকা নূসরাত জাহান নার্গিছ,পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের রাঙামাটি শাখার সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন সহ অন্যান্য প্রমূখ। এ সময় রাঙামাটিতে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিকস মিডিয়ার সংবাদকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তরা বলেন, রাঙামাটি জেলাধীন বিলাইছড়ি উপজেলার অরাছড়ি গ্রামের দুই মারমা তরুণীর ধর্ষনের ঘটনার প্রেক্ষিতে বিভিন্ন কারণে রাঙামাটিতে বির্তকিত চাকমা সার্কেল চীফের ২য় পত্নী য়েন য়েন কোন অদৃশ্য শক্তির ইন্দনে পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে। অরাছড়ির দুই তরুণীদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করে নাটক সাজিয়ে পার্বত্য পরিস্থিতি ঘোলাটে করতে একের পর এক বিতর্কিত কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। কেননা রাঙামাটিতে আসার পর থেকে তাহার বিভিন্ন কর্মকান্ড গুলো পর্যালোচনা করলে বোঝা যায় তিনি পরিস্তিতি উত্তপ্ত করা ও সাম্প্রদায়িক উস্কানি দেওয়ার পায়তারা চালাচ্ছে। যার ফলে রাণীর এহেন উস্কানিতে পার্বত্যবাসী আতঙ্কিত ও ক্ষুদ্ধ অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া রাণী য়েন য়েন তরুণীদের ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্টেটমেন্ট নিবে না হয় গুম করে আরেক কল্পনা চাকমার মত নাটক সাজিয়ে পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগাবে বলে মন্তব্য করেছে উপস্থিত বক্তরা।

এছাড়া পাহাড়ে যখন ইতি চাকমা,মুকুল চাকমা,সাদিকুল ইসলাম,রবিউল হোসেন,রতন,শান্ত ,মোহনী ত্রিপুরা,বালাতি ত্রিপুরা,অরবিন্দু চাকমা সহ আওয়ামীলীগের অসংখ্য নিরীহদের হত্যা,গুম ও নির্যাতন করা হয় তখন মানবাধিকার কমিশনের রাঙামাটি সদস্য বাঞ্চিতা চাকমা ও রাণী য়েন য়েন কোন প্রতিবাদ করেন নি বলে মন্তব্য করা হয়।

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!