আগামীকাল থেকেই রাঙামাটি কাপ্তাই হ্রদে মাছ আহরণ শুরু

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙামাটি প্রতিনিধি ঃ
দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কাপ্তাই হ্রদ হচ্ছে অন্যতম। কাপ্তাই হ্রদের উপর পার্বত্য এলাকার হাজার হাজার মানুষ জীবিকা নির্বাহের জন্য বেচে নেয়। কাপ্তাই হ্রদ থেকে মাছ শিকার করে প্রচুর পরিমাণে অর্থ উপার্জন ও জীবিকা নির্বাহ করে। রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদের মাছ শিকারের উপর লক্ষাধিক মৎস্যজীবী জীবিকার নির্ভরশীল। মৎস্য ব্যবসায়ী ও মৎস্য জেলে ও মৎম্য শ্রমিকসহ লক্ষাধিক লোক মানুষ আয়-উপার্জন করে এই কাপ্তাই হ্রদ থেকে। চলতি মৌসুমে কাপ্তাই হ্রদে মাছের সুষ্ঠু ও প্রাকৃতিক প্রজনন, বংশ বিস্তার এবং উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য গত ১লা মে থেকে মাছ শিকার নিষেধাজ্ঞার পর আগামীকাল মঙ্গলবার ১আগস্ট থেকে আবারও রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে মাছ শিকার শুরু হচ্ছে। আহরণ ও বাজারজাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে জেলা প্রশাসন তিন মাস মাছ শিকার নিষেধাজ্ঞার পর আবার সচল হয়ে উঠছে তাদের জীবীকা।
 
রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নানের সাথে যোগাযোগ করলে মঙ্গলবার মধ্যরাত ১২টা থেকে হ্রদে মাছ শিকারের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করার কথা জানান। তিনি আরও জানান, কাপ্তাই হ্রদে যে কোন প্রকার পোনা মাছ নিধনকারীদের আইনের ধারা অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
মৎস্য ব্যবসায়ী ভারত চন্দ্র চাকমা বলেন, রাঙামাটির হাজার হাজার মানুষ মাছ শিকারের উপর নির্ভরশীল। আগামীকাল থেকে মাছ শিকার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে দেওয়ায় বিভিন্ন জেলেদের মাঝে ফিরে আসছে কর্মচাঞ্চল্যতা।
 
জেলে কিরন চন্দ্র চাকমা জানান, রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার কারনে কাপ্তাই হ্রদে প্রায় তিন মাস মৎস্য আহরণ বন্ধ থাকে। আগামীকাল থেকে আমরা আবারও আগের মত করে কাপ্তাই হ্রদে মাছ আহরণ করতে পারব। পরিবারে এটি অনেকটা আয়ের উৎস হিসেবে কাজ করে। মাছ আহরণ করে একটি ছেলে কলেজে এবং একটি মেয়ে মাধ্যমিকে পড়া-শোনার খরচ দিতে হয়।যা মাছ আহরণ করে তা সম্ভব হয়।
 
এদিকে কাপ্তাই হ্রদে মাছের প্রাকৃতিক প্রজনন সম্পন্ন হওয়ায় জেলা প্রশাসন শর্তসাপেক্ষে জেলেদের মৎস্য আহরণের অনুমতি দিয়েছে। তবে শর্তসাপেক্ষে কেবল বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএফডিসি) রাঙামাটি জেলা দফতর থেকে লাইসেন্স গ্রহণ এবং আহরিত মাছের শুল্ক প্রদান করে কাপ্তাই হ্রদে মাছ শিকার ও আহরণ করা যাবে। তবে অবমুক্ত মৎস্য পোনার নিরাপত্তা রক্ষা ও বংশ বৃদ্ধির জন্য রাঙামাটি সদরের ফিসারিঘাট সংলগ্ন ২ কিলোমিটার, ডিসি বাংলো এলাকা এবং লংগদু উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয় সংলগ্ন ২ কিলোমিটার হ্রদ এলাকার অভয়াশ্রমে কোন রকম মাছ শিকার ও আহরণ করা যাবে না।
সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!