অনারম্বর ভাবেই পালিত হল প্রবারণা পূর্নিমা

জগতের সকল প্রাণীর সুখ, শান্তি ও মঙ্গল কামনা করে বিশেষ প্রার্থনার মধ্যে দিয়ে কিছুটা অনারম্বর ভাবেই পালিত হল বৌদ্ধদের দ্বিতীয় প্রধান ধর্মীয় উৎসব প্রবারণা পূর্ণিমা। এ উপলক্ষে দেশের সকল বৌদ্ধ বিহারে বুদ্ধপূজা, সংঘদান, অষ্টপরিস্কার দান, পঞ্চশীল প্রার্থনা, প্রদীপ পূজার আযোজন করা হয়।
 
সকাল থেকেই চট্টগ্রামের বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহারে উপাসক উপাসিকার সমাগম বাড়তে থাকে। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় অন্যান্য বারের চেয়ে এবারের নিরাপত্তা ব্যাবস্থা ছিল চোখে পরার মত।
 
এদিকে ভিক্ষু মহাসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ফানুস না উড়ানোর কথা থাকলেও কিছু কিছু জায়গায় ফানুস উত্তোলন করা হয়েছে যা অন্যান্য বারের চেয়ে অনেক কম। সন্ধ্যায় লোক সমাগমও ছিল কম। নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহারের সামনের সড়ক থেকে অদূরে ডিসি হিলের ফটকের সামনে থেকে এবং ডিসিহিল সংলগ্ন মোমিন রোডের দিক থেকে ওড়ানো হয় ফানুস। বৌদ্ধদের আনন্দ কিংবা আগ্রহও ছিল না চোখে পড়ার মত।
প্রতিবছর প্রবারণা পূর্ণিমায় নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহার সড়ক মধ্যরাত পর্যন্ত যান চলাচলের জন্য বন্ধ থাকলেও মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্দেশ থাকায় এবার রাত ৮টার পর থেকে এই সড়ক যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। এদিকে কাতালগঞ্জ বৌদ্ধ বিহারের সামনে থেকেও খুব অল্প সংখ্যক ফানুস উত্তোলন করা হয়েছে।
 
এছাড়া যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় রাউজান, রাঙ্গুনিয়া, পটিয়া, চন্দনাইশ, সাতকানিয়া, বাশঁখালী, লোহাগড়া, আনোয়ারা সহ প্রত্যন্ত এলাকার বৌদ্ধ বিহার গুলোতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে প্রবারণা পূর্ণিমা উদযাপিত হয়েছে।
সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে থেকে এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

Ads

Recommended For You

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!